প্রশ্ন: ফেসবুকে যদি ইসলামিক পোস্ট দিয়ে মনে মনে বেশি বেশি লাইক, কমেন্ট পাওয়ার আশা করে এবং লাইক, কমেন্ট পেয়ে খুশি হয়ে আরও পোস্ট করার আশা করে। এতে কি সওয়াব পাওয়া যাবে? অনেকে পোস্ট করেও বলে বেশি বেশি লাইক ও কমেন্ট করার জন্য। এতে কি সমস্যা আছে?


উত্তর: আমাদের করণীয় হল, একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে দ্বীনের প্রচার-প্রসারের স্বার্থে ইসলামী পোস্ট করা। তারপর যদি মানুষ তাতে লাইক, কমেন্ট, প্রশংসা ও শেয়ার করে আর এগুলো দেখে মনে মনে আনন্দিত হয় এ কথা ভেবে যে, দ্বীনের কথা অনেক  মানুষের নিকট পৌঁছেছে বা প্রচুর মানুষ উপকৃত হয়েছে তাহলে এতে কোন আপত্তি নাই ইনশাআল্লাহ। বরং এটি তার দুনিয়াবী সুসংবাদ। আখিরাতের পুরস্কার তো আল্লাহ চাইলে পাবে। যেমন হাদিসে বর্ণিত হয়েছে,

عَنْ أَبِي ذَرٍّ، قَالَ قِيلَ لِرَسُولِ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم : أَرَأَيْتَ الرَّجُلَ يَعْمَلُ الْعَمَلَ مِنَ الْخَيْرِ وَيَحْمَدُهُ النَّاسُ عَلَيْهِ، قَالَ : ‏ تِلْكَ عَاجِلُ بُشْرَى الْمُؤْمِنِ ‏‏.‏

আবু দারদা (রা) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে প্রশ্ন করা হল, (হে আল্লাহর রাসূল!) আপনি এমন ব্যক্তিকে কী মনে করেন যে, আল্লাহর  উদ্দেশ্যেই ভালো কাজ করে কিন্তু মানুষ তার কাজের প্রশংসা করে? রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বললেন: "এটি তো মুমিনের জন্য অগ্রিম সুসংবাদ।" [সহীহ মুসলিম হা/নং ২৬৪২, সুনান ইবনে মাজাহ, হা/নং ৪২২৫]।

অনুরূপভাবে আল্লাহর দ্বীনের প্রচার-প্রসারের উদ্দেশ্যে যদি ইসলামী পোস্টকে বিভিন্ন গ্রুপ, পেইজ, ও বন্ধুদের নিকট শেয়ার করা হয় বা বন্ধুদেরকে শেয়ার করতে বলা হয় তাহলেও কোনো আপত্তি নাই। কারণ দ্বীনের প্রচার-প্রসার কামনা করা মুমিনের স্বাভাবিক প্রত্যাশা।

♻ কিন্তু পোস্ট করার উদ্দেশ্যই যদি হয় মানুষের লাইক, কমেন্ট, প্রশংসা ও রেসপন্স পাওয়া তাহলে তা নিসন্দেহে রিয়া (লোক দেখানো আমল) হিসেবে গণ্য হবে। আর রিয়া হল, ছোট শিরক। রিয়ার মাধ্যমে সৎকর্মের সওয়াব ধ্বংস হয়ে যায়। যেমন: রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন:

 إِنَّ أَخْوَفَ مَا أَخَافُ عَلَيْكُمْ الشِّرْكُ الْأَصْغَرُ . قَالُوا : وَمَا الشِّرْكُ الْأَصْغَرُ يَا رَسُولَ اللَّهِ ؟ قَالَ : الرِّيَاءُ

“আমি তোমাদের উপর আমি সর্বাপেক্ষা ভয় করছি ছোট শিরক সম্পর্কে।” অতঃপর এ সম্পর্কে সাহাবীগণ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে প্রশ্ন করলেন, হে আল্লাহর রাসূল, ছোট শিরক কী?
তিনি বলেন, “তা হল রিয়া তথা লোক দেখানো কর্ম বা ইবাদত।”

অতঃপর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার ব্যাখ্যা করে বলেন, “কোন মানুষ সালাত আদায়ের জন্য দাঁড়াল, যখন দেখল লোকজন তাকে দেখছে তখন সালাতকে আরও সুন্দরভাবে আদায় করল।” (ইবনে মাজাহ্‌, হাকেম-সহীহুল জামে হা/১৫৫৫)

আল্লাহু 'আলাম।

আল্লাহ আমাদেরক কেবল তাঁর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে নেক আমল করার এবং রিয়া তথা লোক দেখানো আমল থেকে হেফাজত করুন। আমীন🤲🏽

▬▬▬➰▬▬▬



Post a Comment

Previous Post Next Post