জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স (প্রফেশনাল) ভর্তিকার্যক্রমে এলএলবি/LLB ১ম পর্ব, পােষ্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন জার্নালিজম, পােষ্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন লাইব্রেরী এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্সএমএসসি ইন কম্পিউটার সায়েন্স, মাস্টার অব বিজনেস্ এ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ), এমবিএ ইন অ্যাপারেল মার্চেন্ডাইজিং কোর্সসমূহে্ ২য় রিলিজ স্লিপের আবেদন আজ ২০ আগস্ট ২০১৯ তারিখ হতে শুরু হয়ে ২২ আগস্ট ২০১৯, তারিখ বিকাল ৪টার পর্যন্ত চলবে। ২য় রিলিজ স্লিপে ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিম্নে দেখুন:- 

প্রাথমিক আবেদন ফি ৩০০/- টাকা


২য় রিলিজ স্লিপে ভর্তি হওয়ার গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহ: নিম্নে ১ম মেধাতালিকা প্রকাশের পর মাস্টার্স ১ম পর্বে ভর্তি হওয়ার গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহ দেওয়া হলো:


  • ভর্তি ফরম পূরণের তারিখ: ২০/০৮/২০১৯ তারিখ হতে ২২/০৮/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত ।
  • ভর্তির ফরম সহ অন্যান্য কাগজপত্র কলেজে জমা দেওয়ার তারিখ: ২০/০৮/২০১৯ তারিখ হতে ২৪/০৮/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • কলেজ কর্তৃক নিশ্চায়নের তারিখ২০/০৮/২০১৯ তারিখ হতে ২৪/০৮/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • কলেজ কর্তৃক সোনালি ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার সময়২৫/০৮/২০১৯ তারিখ হতে ২৭/০৮/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
 রিলিজ স্লিপে আবেদন করুন এখান থেকে


২য় রিলিজ স্লিপে আবেদন করার নিয়ম:
  •  রিলিজ স্লিপে আবেদনের জন্য প্রার্থীকে এখান থেকে
    Mas/PhD অপশন থেকে applicant Login সিলেক্ট করে Masters (Prof.)  Login অপশনে ক্লিক করতে হবে এবং ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত তথ্য ছকে প্রার্থীর স্নাতকরের রােল নম্বর ও পিন সঠিকভাবে এন্ট্রি দিতে হবে।

  • Blank Data Entry Form (Masters Professional) এর মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণের ক্ষেত্রে প্রার্থীকে নিজের নাম, পিতা/মাতার নাম, শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল তথ্য ও জন্ম তারিখ নির্ভুলভাবে এন্ট্রি দিতে হবে। এছাড়া প্রার্থীর স্নাতক পর্যায়ে অর্জিত সনদ ও মার্কশীটের সত্যায়িত কপি ও “জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়/যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অন্য কোন শিক্ষা কার্যক্রমে আমি ভর্তি হয়নি। দ্বৈত ভর্তির ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধান অনুযায়ী ভর্তি বাতিল সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত আমি মেনে নিতে বাধ্য থাকবো”- মর্মে আবেদনকারীর স্বাক্ষরিত একটি অঙ্গীকারনামা অনলাইন আবেদনে স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে। এই ফরমে প্রার্থীর কোন তথ্য ভুল/অসত্য বলে প্রমাণিত হলে, তার ভর্তি বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অধিকার রাখে ।

  • এ পর্যায়ে আবেদনকারী তার ভর্তি যোগ্য (Eligible) কোর্সের তালিকা দেখতে পাবে৷ আবেদনকারী তার পছন্দ অনুযায়ী বিভাগ ও জেলাওয়ারী যে কোন কলেজের নাম  Select করলে সংশ্লিষ্ট কলেজে মাস্টার্স প্রফেশনাল কোর্সের নাম ও আসন সংখ্যা দেখতে পাবে৷ এই তালিকা থেকে প্রার্থীকে তার প্রার্থিত কোর্সের পছন্দ সঠিকভাবে নির্ধারণ করতে হবে৷

  • মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/ আদিবাসি/ প্রতিবন্ধী/পোষ্য (Ward) কোটায় ভর্তি হতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে তথ্য ছকের নির্দিষ্ট স্থানে তার জন্য প্রযোজ্য কোটা Select করতে হবে৷ কোটায় আবেদনের ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত মূল সনদপত্র থাকতে হবে৷ একজন প্রার্থীর এক বা একাধিক কোটায় যোগ্য হলে কোটার পছন্দক্রম নির্ধারণ করে দিতে হবে৷ 
  • ফরম পূরণের সময় আবেদনকারীর পাসপোর্ট আকারে সম্প্রতি তোলা রঙ্গিন ছবি Scan করে আপলোড করতে হবে৷ ছবির মাপ হবে ১২০ x১৫০ pixels, Image Type: jpg এবং maximum file size:50Kb.

  • সঠিক তথ্য ও ছবিসহ ছক পূরণ করে Submit Application অপশনে ক্লিক করতে হবে৷ এ পর্যায়ে আবেদনকারীর রোল নম্বর ও পিন কোড প্রদর্শিত হবে এবং আবেদনকারীকে ফরমটি ডাউনলোড করে [A4(8.5”×11”) অফসেট সাদা কাগজে ] প্রিন্ট নিতে হবে৷


 আবেদন ফরম জমা দিতে যা যা লাগবেএই আবেদন ফরমের সংগে প্রার্থীর স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষাগত যোগ্যতার সত্যায়িত নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত কপি ও Onlineএ ভর্তির প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ৩০০/- (তিনশত) টাকা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান/কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে৷ 
 

আবেদন ফরম বাতিল বা ছবি ত্রুটিপূর্ণ হলে করনীয় কোন প্রার্থী তার প্রাথমিক আবেদন ফরমটি বাতিল বা ত্রুটিপূর্ণ ছবি পরিবর্তন করতে ইচ্ছুক হলে, তাকে এই লিঙ্কে গিয়ে আবেদন ফরমের রোল নম্বর ও পিন কোড এন্ট্রি দিতে হবে৷ এ পর্যায়ে আবেদনকারীকে Form  Cancel/Photo  Change Option এ গিয়ে Click to Generate the OTP অপশনটি ক্লিক করতে হবে৷ এ সময়ে প্রার্থী তার আবেদন ফরমে উল্লিখিত ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে One Time Password (OTP) পাবে৷ এই OTPএন্ট্রি দিয়ে শিক্ষার্থী তার আবেদন ফরমটি বাতিলপূর্বক নতুন করে আবেদন ফরম পূরণ ও ছবি আপলোড করতে পারবে৷
 
 



Post a Comment

Previous Post Next Post