জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি আজ ২৮ শে আগস্ট, ২০১৯ তারিখে প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ভর্তির প্রাথমিক আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হবে ০১/০৯/২০১৯ থেকে এবং শেষ হবে ১৫/০৯/২০১৯ তারিখ তবে এবার ভর্তি যোগ্যতার কিছু পরিবর্তন হয়েছে। নিম্নে অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির যোগ্যতা, অনলাইন আবেদন পদ্ধতি এবং ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হলোঃ

অনার্স ১ম বর্ষে আবেদন করার যোগ্যতা ২০১৯-২০২০ঃ


  • বাংলাদেশে স্বীকৃত যেকোনো শিক্ষা বোর্ড বা বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় -এর মানবিক শাখা থেকে ২০১৬/২০১৭ সালের SSC বা সমমান পরীক্ষায় কমপক্ষে  জিপিএ ২.৫০ পয়েন্ট প্রাপ্ত এবং ২০১৮/২০১৯ সালের HSC বা সমমান পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ কমপক্ষে জিপিএ ২.৫০ পয়েন্ট প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ২০১৯ সালের অনার্স ১ম বর্ষে আবেদন করতে পারবে।
  • বাংলাদেশে স্বীকৃত যেকোনো শিক্ষা বোর্ড বা বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় -এর বিজ্ঞান বা ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ২০১৬/২০১৭ সালের SSC বা সমমান পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ৩.০০ প্রাপ্ত এবং ২০১৮/২০১৯ সালের HSC বা সমমান পরীক্ষায় আলাদাভাবে ৪র্থ বিষয়সহ কমপক্ষে জিপিএ ২.৫০ পয়েন্ট প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ২০১৯ সালের অনার্স ১ম বর্ষে আবেদন করতে পারবে।
  • বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শুধুমাত্র ১)HSC ভোকেশনাল ২)HSC (বিজনেস ম্যানেজমেন্ট) ৩)ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স কোর্স থেকে উত্তীর্ণ প্রার্থীরা, উপরিউক্ত শর্ত সাপেক্ষে এ ভর্তি কার্যক্রমে আবেদন করতে পারবে।
  • আবেদনকারীর HSC/সমমান শ্রেণির পঠিত বিষয়সমূহ থেকে ভর্তি যোগ্য (Eligible) বিষয় নির্ধারন করা হবে। উক্ত পঠিত বিষয়ে (২০০ নম্বরের মধ্যে) ন্যূনতম গ্রেড পয়েন্ট ৩.০০ থাকতে হবে।
  • বিদেশী সার্টিফিকেটধারী আবেদনকারীদের ক্ষেত্রেও, বাংলাদেশ -এ স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক তাদের অর্জিত SSC ও HSC পর্যায়ের নম্বর পত্রের সমতা নিরুপণ করা হলে, তারাও ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন করতে পারবে। তবে, এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে ভর্তি নির্দেশিকার সকল শর্ত পূরণ করতে হবে।
  • আবেদনকারীকে ২০১৬/২০১৭ সালের O-level পরীক্ষায় কমপক্ষে ৩টি বিষয়ে B গ্রেডসহ অন্তত ০৪টি বিষয়ে উত্তীর্ণ এবং ২০১৮/২০১৯ সালের A-level পরীক্ষায় ০১টি বিষয়ে B গ্রেডসহ অন্তত ০২টি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। তবে এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে ভর্তি নির্দেশিকার অন্যান্য সকল শর্ত পূরণ করতে হবে। এ সকল প্রার্থীদের ডীন, স্নাতকপূর্ব শিক্ষাবিষয়ক স্কুল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে।


অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির গুরুত্বপূর্ণ তারিখ ২০১৯-২০২০:


  • ১ম পর্যায়ে আবেদনের সময়সীমাঃ ০১/০৯/২০১৯ তারিখ হতে ১৫/০৯/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • ১ম পর্যায়ে আবেদন ফি ও প্রয়োজনীয় কাগজাদি জমা দেওয়ার শেষ সময়ঃ ০২/০৯/২০১৯ হতে ১৬/০৯/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • ১ম পর্যায়ে ভর্তির সময়সীমাঃ ২৩/০৯/২০১৯ তারিখ হতে ২৮/০৯/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • ২য় পর্যায়ে ভর্তির সময়সীমাঃ ০৩/১০/২০১৯ তারিখ হতে ১৩/১০/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • ক্লাশ শুরুর তারিখঃ ০১/১০/২০১৯


অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি প্রক্তিয়া ২০১৯-২০২০ঃ


  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি হতে হলে, শিক্ষার্থীকে প্রথমে ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন করতে হবে। প্রাথমিক আবেদনে শিক্ষার্থী নির্বাচিত হলে, সে অনার্স ১ম বর্ষের জন্য চূড়ান্ত ভর্তির ফরম তুলতে পারবে।
  • ভর্তি পরীক্ষা ব্যতীত এসএসসি ও এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করানো হবে। প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা তৈরী করে পরীক্ষার্থীদের পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে।
  • একই প্রতিষ্ঠান/কলেজে একই বিষয়ে দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর প্রাপ্ত ফলাফল একই হলে, সে ক্ষেত্রে সকল আবেদনকারীকে পর্যায়ক্রমে চতুর্থ বিষয়সহ SSC ও HSC পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ এর যথাক্রমে ৪০% ও ৬০% 
  • এবং প্রয়োজন হলে SSC ও HSC পরীক্ষার মোট প্রাপ্ত নম্বরের যথাক্রমে ৪০% ও ৬০% এর ভিত্তিতে মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে।
  • এর পরেও যদি দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর প্রাপ্ত ফলাফল একই হয়, তা হলে যার বয়স কম হবে তাকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

অনার্স ভর্তির আবেদন ফি ও কলেজ চয়েজঃ 

  • অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি কার্যক্রমের আবেদন ফি ২৫০/- টাকা। বি.দ্র. আবেদন ফরমে কোনো ভুল থাকলে, আবেদনকারী তা Cancle করে নতুন করে আবেদন করতে পারবে। তবে ১ বারের বেশি Cancle করা যাবেনা। আর, কলেজ কর্তৃক আবেদন ফরমটি নিশ্চিত হলে, তা আর Cancle করা যাবে না।
  • প্রার্থী/আবেদনকারী শুধুমাত্র ১টি কলেজে আবেদন করতে পারবে। 



অনার্স ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন করতে যা যা লাগবে:
  1. SSC বা সমমান পরীক্ষার রোল নম্বর
  2. SSC বা সমমান পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন নম্বর
  3. HSC বা সমমান পরীক্ষার রোল নম্বর
  4. HSC বা সমমান পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন নম্বর
  5. এক কপি পাসপোর্ট সাইয রঙ্গিন ছবি
  6. একটি ইমেইল এড্রেস।
  7. একটি মোবাইল নম্বর

অনার্স ভর্তির জন্য অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন করার নিয়মঃ

২০১৯ সালের অনার্স ১ম বর্ষের ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন পাচটি ধাপে সম্পন্ন করতে হয়।

  • প্রথম ধাপঃ অনার্স ১ম বর্ষের ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন করতে প্রথমে এখানে করুন ।
  • তারপর, SSC ও HSC পরীক্ষার রোল নম্বর, রেজিঃ নম্বর, বোর্ড ও পাসের সন দিয়ে Next বাটনে ক্লিক করুন। 
  • দ্বিতীয় ধাপঃ আবেদনকারীর SSC ও HSC পরীক্ষার তথ্য সঠিক হলে, সে তার SSC ও HSC পরীক্ষার ফলাফলসহ সব তথ্য দেখতে পাবে। এবং নিচের দিকে আবেদনকারীর নামসহ তার পিতা-মাতার নাম, জন্মতারিখ এবং লিঙ্গ অপশন দেওয়া থাকবে, সেই অপশন ভাল করে দেখবেন যে, কি দেওয়া আছে। (ফিমেইল এর স্থলে মেইল দেওয়া থাকলে, ফিমেইল দেওয়া যাবে) ।
  • তৃতীয় ধাপঃ তারপর Next বাটনে ক্লিক করুন। তারপর যে পেজ আসবে, সে পেজের একেবারে বাম দিকের প্রথম কলামে দেখতে পাবেন, Eligible Subject List দেওয়া। এই তালিকা থেকে আপনি জানতে পারবেন যে, আপনি কি কি বিষয় নিয়ে অনার্স এ পড়তে পারবেন।
  • তারপর দ্বিতীয় কলাম থেকে আপনাকে কলেজ নির্বাচন করতে হবে (উল্লেখ্য যে, শুধুমাত্র একটি কলেজে আবেদন করতে পারবেন)। এ জন্য আপনাকে প্রথমে বিভাগ নির্বাচন করতে হবে । তারপর জেলা নির্বাচন করতে হবে। এবং সব শেষে নিচের বক্স থেকে কাঙ্ক্ষিত বা ভর্তিচ্ছু কলেজের নাম নির্বাচন করতে হবে। (কলেজটি যে বিভাগ ও জেলায় অবস্থিত, সেসব বিভাগ ও জেলার নাম দিতে হবে)
  • এরপর আপনি কলামে Subject choice অপশন পাবেন এবং কোন সাব্জেক্টে কত সিত আছে, তাও ডান পাশে দেখতে পাবেন। এখন, আপনি যে সাবজেক্টি প্রথম চয়েজ দিবেন, সেটাতে প্রথমে ক্লিক করুন। তারপর, দুই নম্বরে যে সাবজেক্ট চয়েজ দিবেন, সেটাতে ক্লিক করুন। এভাবে একের পর এক সাবজেক্ট চয়েজ করতে পারবেন। (উল্লেখ্য, সাবজেক্ট চয়েজ খুভ সাবধানে দিবেন) । সাবজেক্ট চয়েজ করা শেষ হলে Next বাটনে ক্লিক করুন।
  • চথুর্থ ধাপঃ এখন যে পেজ আসবে, তাতে কোটা দেওয়া থাকবে। আপনার যদি কোনো কোটা থাকে, তাহলে Yes অপশনে ক্লিক করে কাঙ্ক্ষিত কোটা সেলেক্ট করুন। আর, যদি কোনো কোটা না থাকে, তাহলে NO অপশনে ক্লিক করুন। তারপর NEXT বাটনে ক্লিক করুন।
  • পঞ্চম ধাপঃ এখন যে পেজ আসবে, তাতে আবেদনকারীর একটি ছবি, একটি মোবাইল নম্বর এবং একটি ই-মেইল দেওয়া লাগবে। (এখানে ছবিটির উচ্চতা ১৫০ পিক্সেল, প্রস্থ ১২০ পিক্সেল, সাইজ ৫০ কেবি এবং ফরমেট png হতে হবে। আর, আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর হলে হতে এবং ই-মেইলও)। 
  • তারপর preview application এ ক্লিক করে দেখুন যে, আপনার দেওয়া সব তথ্য সঠিক হয়েছে কি না। সব কিছু ঠিকঠাক হলে নিচে থাকা Submit Application এ ক্লিক করুন। তারপর পিডিএফ আকারে একটি ফাইল বা ফরম আসবে, তা ডাউনলোড করুন। দাউনলোড করার পর তা প্রিন্ট করে নিন।
  • ফরমটি প্রিন্ট করার পর আবেদনকারী ফরমটিতে সাক্ষর দিয়ে নিম্নোক্ত কাগজপত্রসহ আবেদন ফি বাবত ২৫০ টাকা দিয়ে ভর্তিচ্ছু কলেজে জমা দিতে হবে। জমা দেওয়ার পর যদি আপনার মোবাইলে মেসেজ আসে যে, ফরমটি জমা হয়েছে। তাহলে, এই পর্যায়ে প্রথমিক আবেদন করা শেষ হলো। আর, যদি না আসে তাহলে কলেজের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

    আবেদন ফরমের সাথে যা যা জমা দিতে হবেঃ

    আবেদনকারীকে প্রথমে প্রিন্ট করা প্রাথমিক আবেদন ফরমটির নির্ধারিত স্থানে স্বাক্ষর করতে হবে। তারপর,
    • উক্ত আবেদন ফরমের সংগে প্রার্থীর SSC ও HSC / সমমান পরিক্ষার সত্যায়িত নম্বরপত্র/মার্কশীট,
    • এবং প্রার্থীর SSC ও HSC / সমমান পরিক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত কপি,
    • এবং আবেদন ফি বাবত ২৫০/- টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে। 
     আবেদন ফরম জমা দেওয়ার কয়েকদিনের মধ্যে আবেদনকারীকে তার মোবাইল নম্বরে ফলাফল জানিয়ে দেওয়া হবে। আবেদনকারী ভর্তির জন্য নির্বাচিত হলে, সংশ্লিষ্ট কলেজ আবেদনকারীর প্রাথমিক আবেদন Online -এ নিশ্চায়ন করবে। তবে সে সকল আবেদনকারীর মোবাইল নম্বরে SMS -এর মাধ্যমে তা জানিয়ে দেওয়া হবে। শুধু তাদের।

    উল্লেখ্য যে, প্রাথমিক আবেদন নিশ্চায়ন ব্যতীত কোন প্রার্থীই ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না। কলেজে আবেদন পত্র জমা দেওয়ার পরে প্রার্থী তার মোবাইল ফোনে SMS না পেলে বুঝতে হবে যে, তার আবেদন ফরম কলেজ কর্তৃক নিশ্চায়ন করা হয়নি। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যোগাযোগ করতে হবে।

    তবে, প্রাথমিক আবেদন ফরম জমা দেওয়ার পর কলেজ থেকে প্রার্থীর মোবাইলে SMS না আসলে, অনলাইনের মাধ্যমে জানতে পারবেন যে আপনার আবেদন ফরম কলেজে জমা হয়েছে কি না। তা দেখতে এখানে ক্লিক করুন




    ফলাফল ও ভর্তি প্রক্রিয়া

    মেধাতালিকায় যার পয়েন্ট বেশি থাকবে সেই ভর্তির সুযোগ পাবে। আর ফলাফল কয়েকটি ধাপে প্রকাশ করা হবে। যেমনঃ ১ম মেরিটের ফলাফল দেখুন১ম মাইগ্রেশন ও ২য় মেধা তালিকা২য় মাইগ্রেশন ও কোটা মেধাতালিকা১ম রিলিজ স্লিপ এবং ২য় রিলিজ স্লিপ


    অনার্স ১ম বর্ষে চূড়ান্ত ভর্তি পদ্ধতি ২০১৯-২০২০:

    •  ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের অনার্স ১ম বর্ষের চূড়ান্ত ভর্তির জন্য প্রার্থীকে এখান থেকে (Honours Tab -এ থেকে)
    Honours applicant's Login -এ ক্লিক করে (ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত তথ্য ছকে) প্রার্থীর রােল নম্বর ও পিন সঠিকভাবে এন্ট্রি দিয়ে Login করুন।
    • এরপর Admission Information নামে একটি পেইজ তথা আপনি যে কলেজে নির্বাচিত হয়েছেন, তা দেখতে পাবেন। এবং একইসাথে Application Form নামে একটি অপশন থাকবে, চূড়ান্ত ভর্তির জন্য সেটাতে ক্লিক করতে হবে।
    • তারপর, যে পেজ আসবে তাতে আপনার নাম, পিতার সহ আপনি যে বিষয়ে চান্স পেয়েছেন তা সম্বলিত একটি পেজ আসবে। 
    • সেখানে আপনাকে Nationality এর বক্সে Bangladeshi লিখবেন। তারপর, নিজ ধর্ম select করবেন। এরপর, একজন গার্জিয়ান এর নাম দিবেন। তারপর, গার্জিয়ান এর ফোন নম্বর এবং তার বার্ষিক আয় দিবেন। এরপর
    • নিচে একটি লেখা থাকবে যে, Do you want to change your assignment subject on based your preference list? অর্থাৎ আপনি যদি ১ম চয়েজ না পান, তাহলে Yes এ ক্লিক করবেন নতুবা No তে ক্লিক করবেন।
    • এরপর, নিচের দিকে (বাম পাশে) আপনার স্বায়ী এবং(ডান পাশে) বর্তমান ঠিকানা দিবেন। তারপর সবকিছু সঠিক হলে Save Information এ ক্লিক করুন। 
    • তারপর যে পেজ আসবে, সেখান থাকা Download অপশনে ক্লিক করে, ভর্তি ফরম ডাউনলোড করে প্রিন্ট করুন। একটি থাকবে কলেজ কপি এবং একটি থাকবে স্টুডেন্ট কপি।
    • এরপর কলেজে উপরিউক্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ ফরমটি জমা দিবেন।
    • তারপর কলেজ কর্তৃপক্ষ অনলাইনে আপনাকে নিশ্চায়ন করলে আপনার ভর্তির প্রক্রিয়া শেষ হবে।

    অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি হতে যেসব কাগজপত্র লাগবে ২০১৯-২০২০: 

    1. অললাইন থেকে মূল আবেদন ফরম– ২ কপি (অবশ্যই A4 অফসেট সাদা কাগজে কালার প্রিন্ট করতে হবে) একটি কলেজ কপি আর অন্যটি স্টুডেন্ট কপি।
    2. পাসপোর্ট সাইজের ছবি ৪টি এবং পেছনে নাম লিখে দিতে হবে (কলেজভেদে কম বেশি হতে পারে)।
    3. SSC বা সমমান ও HSC বা সমমান পরীক্ষার মূল নম্বরপত্র বা মার্কশিট -১টি করে ২ টি।
    4. SSC বা সমমান ও HSC বা সমমান পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত ফটোকপি – ১ করে ২ কপি।
    5. পাঠ বিরতি বা শিক্ষা বিরতি সনদপত্র। (২০১৮ সালে এইচএসসি পাশ করছে শুধু তাদের জন্য প্রযোজ্য)
    6. কোটার সনদপত্র যারা মুক্তিযোদ্ধা, পোষ্য কোটায় আবেদন করছেন তাদের জন্য প্রযোজ্য।


    বিবিধঃ


    • আবেদন ফরমে শিক্ষার্থীর কোন তথ্য অসত্য, ভুল বা অসম্পুর্ণ বলে প্রমানিত হলে, তার আবেদন ফরম/চুড়ান্ত ভর্তি বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।
    • এই ভর্তি কার্যক্রমের যে ধারা/নিয়মাবলীর সংশোধন, সংযোজন, পরিবর্তন বা বাতিল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।
    • একই শিক্ষাবর্ষের কোনপ্রার্থী দ্বৈত ভর্তি হলে তা বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

     ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনার্স ১ম বর্ষের ভর্তি তথ্য বিজ্ঞপ্তিটি



    ভর্তি বিজ্ঞপ্তিটি ডাউনলোড করুন এখান থেকে
    ভর্তি নির্দেশিকাটি ডাউনলোড করুন এখান থেকে

    Post a Comment

    Previous Post Next Post