২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণ এর বিস্তারিত তথ্যবলী | Dakhil form fill up details 2020

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড, ঢাকা এর অধীনে বাংলাদেশের সকল মাদরাসায় ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। নিম্নে ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণের নিয়মাবলীসহ বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হলো:


২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম 

পূরণ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তারিখ:


  • পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের জন্য নিজ নিজ মাদরাসায় সাদা কাগজে আবেদন করার শেষ তারিখ: ২৪/১০/২০১৯
  • নির্বাচনী পরীক্ষা গ্রহণ ও ফল প্রকাশের শেষ তারিখ: ০৫-১১-২০১৯
  • বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ডের Web Site -এ পরীক্ষার্থীদের সম্ভাব্য তালিকা প্রদর্শনের তারিখ: ০৬-১১-২০১৯
  • প্রদর্শিত সম্ভব্য তালিকা হতে ফরম পূরণ এবং বিলম্ব ফি ছাড়া TT স্লিপ বের করার তারিখ: ০৭-১১-২০১৯ হতে ১৪/১১/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • বিলম্ব ফি ছাড়া TT স্লিপের টাকা ব্যাংকে জমা দেয়ার শেষ তারিখ: ১৭/১১/২০১৯
  • প্রতি পৰীক্ষার্থী ১০০/- টাকা হারে বিলম্ব ফিসহ ফরম পূরণ ও TT স্লিপ বের করার তারিখ:  ১৬-১১-২০১৯ হতে ২১-১১-২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।
  • বিলম্ব ফি সহ TT স্লিপের টাকা ব্যাংকে জমা দেয়ার শেষ তারিখ: ২৪/১১/২০১৯
  • চূড়ান্ত পরীক্ষার্থীর তালিকা বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ডের Web Site -এ প্রদর্শনের তারিখ: ৩০-১১-২০১৯
  • চূড়ান্ত তালিকা ও TT স্লিপের ফটোকপি বাের্ডে হাতে হাতে জমা দেয়ার শেষ তারিখ: ০৩-১২-২০১৯ হতে ০৮-১২-২০১৯

বি.দ্র. রেজিস্ট্রেশনে যে Pass word ব্যবহার করা হয়েছে, সে Pass Word দিয়েই Online -এ ফরম পূরণ করতে হবে।


২০২০ সালের আলিম পরীক্ষার ফরম পূরণের তথ্যবলী দেখুন এখান থেকে


২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় যারা 

ফরম পূরণ করতে পারবে:


  • ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের নিয়মিত, ২০১৬-১৭, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের অনিয়মিত এবং (রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে) জি, পি, এ উন্নয়ন বা Improvement পরীক্ষার্থীরা, ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার জন্য আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে।

  • অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে:

  • ২০১৬-২০১৭ ও ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের রেজিষ্ট্রেশনধারী, যে সকল ছাত্র-ছাত্রী ২০১৮ ও ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে অথবা পরীক্ষায় অংশহণ করেনি, তারা ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত (RP) পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে পারবে।
  • ২০১৮ ও ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত ও নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৪র্থ বিষয় বাদে ০১ থেকে ০৪ বিষয়/গ্রুপে অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীরা, রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে অকৃতকার্য বিষয় বা বিষয়সমূহে ২০২০ সালের পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। 
  • তবে উক্ত পরীক্ষার্থীগণ ৪র্থ বিষয়ে পরীক্ষায় অংশহণ করতে পারবে না। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকৃত বিষয় বা বিষয়সমূহের প্রাপ্ত GP, উত্তীর্ণ বিষয় বা বিষয়সমূহের সংরক্ষিত GP এর সাথে যােগ করে পরিক্ষার্থীর GPA নির্ণয় করা হবে। তবে তারা ইচ্ছে করলে সকল বিষয়ের পরীক্ষায় অংশহণ করতে পারবে।

  • ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের যেসকল ছাত্র-ছাত্রী অতিরিক্ত বিষয় ছাড়া শুধুমাত্র ০১ বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে এবং রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ ২০১৯ সালে শেষ হয়েছে, তারা ২০২০ সালের পরীক্ষার ফরম পূরণ এর পূর্বে ২০০/- টাকা ফি বাের্ডে জমা প্রদান করে রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ নবায়ন করে, শেষবারের মত ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় ঐ অকৃতকার্য বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

  • মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে:

  • কেবল ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষায় সকল বিষয়ে অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ  হয়েছে এবং GPA ৫ .০০ এর কম পেয়েছে তারা ইচ্ছা করলে রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় GPA উন্নয়নের জন্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। তবে তাদেরকে সকল বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।
  • যে সকল পরীক্ষার্থী -২০১৮ সালের দাখিল পরীক্ষায় ০১ থেকে ০৪ বিষয়ে (অতিরিক্ত বিষয় বাদে) অকৃতকার্য হয়ে ২০১৯ সালে দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে, তারা ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় জি, পি, এ উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না ।


২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম 

পূরণ সংক্রান্ত অন্যান্য কিছু নিয়মাবলী:


  • কোনো অবস্থাতেই এক মাদ্রাসার রেজিস্ট্রেশনধারী ছাত্র-ছাত্রী বোর্ডের ছাড়পত্র ব্যতীত অন্য কোন মালিসির মাধ্যমে পরীক্ষায় অংশগহণ করতে পারবে না। আর ছাড়পত্র গ্রহণকারী পরীক্ষার্থীর ছাত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি চূড়ান্ত তালিকার সাথে জমা দিতে হবে।
  • পরীক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন কার্ডে উল্লিখিত বিষয়/বিষয়সমূহে-ই তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। বাের্ডের অনুমতিক্রমে বিষয় পরিবর্তন না করে রেজিস্ট্রেশন কার্ড বহির্ভূত কোন বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলে, অংশগ্রহণকৃত বিষয় বিষয়সমূহ বাদ দিয়েই তার মূল প্রকাশ করা হবে।

  • যে সকল উপজেলায় দাখিল পর্যায়ের পরীক্ষা কেন্দ্র আছে সেই উপজেলস্থ মাদরাসা কোন ক্রমেই অন্য উপজেলা/জেলার পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে না। প্রত্যেক মাদ্রাসাকে নিজ উপজেলা পরীক্ষা কেন্দ্রকে পরীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে উল্লেখ কতে হবে।

  • মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে:

  • কোন অবস্থাতেই মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশনে উল্লেখিত বিষয় ও মাদ্রাসা পরিবর্তন করা যাবে না। তাদের (Online এ ফরম পূরণসহ প্রয়ােজনীয় কাগজপত্রের যথাস্থানে পূর্বের রেজিস্ট্রেশন নম্বর , রােল নম্বর , প্রাপ্ত GPA উল্লেখ করতে হবে। Online -এ পূণকৃত ফরমের প্রিন্ট আউট - এর ক্রমিকের স্কুলে GPA উন্নয়ন শব্দটি লিখতে হবে। 
  • তাদের পরীক্ষার পূরণকৃত ফরমের সাথে ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষার প্রবেশপত্র ও একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট এর সত্যায়িত ফটোকপি অবশ্যই সংযােজন করে চূড়ান্ত তালিকার সাথে আলাদাভাবে জমা দিতে হবে। পরীক্ষার্থীর GPA উন্নয়ন হলে তা গ্রহণ করা হবে । অন্যথায় পূর্বের GPA বহাল থাকবে।


২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার পদ্ধতি:



  • নিয়মিত, অনিয়মিত (RP), GPA উন্নয়ন ও আংশিক (এক থেকে চার বিষয়/গ্রুপে অকৃতকার্য) পরীক্ষার্থীসহ  সকল পরীক্ষার্থী বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড কর্তৃক প্রণীত, শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচি (Syllabus) অনুযায়ী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে হবে। 
  • সকল পরীক্ষার্থীর জন্য GPA উন্নয়ন পরীক্ষার্থী ব্যতীত নিবাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক। তবে যে সকল পরীক্ষার্থী ইতােমধ্যে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে অকৃতকার্য হয়েছে, তাদের নিবচিনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণের বিষয়টি বাধ্যতামূলক নয়।
  • নিচিনী পরীক্ষার উত্তরপত্র মাদরাসা কর্তৃপক্ষকে যথাযথভাবে সংরক্ষণ করতে হবে। প্রয়োজনবােধে নিবাচনী পরীক্ষার উত্তরপত্র বাের্ড কর্তৃপক্ষকে সরবরাহ করতে হবে।


২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণের বিজ্ঞপ্তিটি নিম্নে দেখুন---






Post a Comment

2 Comments

  1. স্যার, আমার জানার বিষয় হলো,যারা দাখিল/এস এস সি নতুন পরিক্ষার্থী তাদের রেজিষ্ট্রেশন ও ফরম পূরণ এর ফিস কত টাকা? জানালে খুব উপকৃত হতাম।

    ReplyDelete
    Replies
    1. রেজিস্ট্রেশন সহ ফরম পূরণের ফি প্রায় ২৫০০ টাকার মত বা কমবেশ হতে পারে।

      Delete