পবিত্র মাহে রামাদান মাস সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং মর্যাদাপূর্ণ মাস। এ মাস আত্মসংযম, আত্মপরিশুদ্ধির মাস। এ মাসে সমস্ত বালেগ (প্রাপ্ত বয়স্ক) মুসলিম নর-নারীর ওপর রোযা রাখা ফরয। রোযা ইসলামের ৫টি স্তম্ভের ৩য় স্তম্ভ। যেহেতু ইসলামের প্রতিটি মাস চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল। তাই মুসলমানরা চাঁদ দেখে রোজা রাখেন এবং ঈদ করেন। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে ২০২০ সালের রোজা ২৫ এপ্রিলের দিবাগত রাতে শুরু হতে পারে অথবা ২৪ এপ্রিলের দিবাগত রাতে রমজান শুরু হতে পারে। কেননা, আরবি মাস ২৯ অথবা ৩০ দিনের হয়ে থাকে এবং প্রতিটি  মাস চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল। তাই কোন মাস কত দিনের হবে, তা কেউ কখনো বলতে পারে না।

যাইহোক, আপনাদের সুবিধার্থে এডু মাসাইল ওয়েবসাইতে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার সাহরী ও ইফতারের সময়সূচী (১৪৪১ হিজরী, ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ) দেওয়া হলো। নিম্নোক্ত প্রথম ছকে রামাদানের সাহরী (সেহরি) ও ইফতারের সময়সূচী ২০২০ শুধুমাত্র ঢাকা জেলার জন্য প্রযোজ্য। যেহেতু বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার সাথে ঢাকা জেলার সময়ের কিছুটা পার্থক্য রয়েছে, সেহেতু ঢাকার সময়ের সাথে সময় যোগ বা বিয়োগ করে অন্যান্য কতিপয় জেলার সেহরী ও ইফতারের সময়সূচী বের করে নিতে হবে। সেক্ষেত্রে, ঢাকার সময়ের সাথে কত মিনিট যোগ বা বিয়োগ করলে অন্য জেলার সাহরী (সেহরি) ও ইফতারের সময়সূচী ২০২০ পাওয়া যাবে তা জানতে এই পোস্টের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ছক দেখুন।



পবিত্র মাহে রামাদানের সাহরী ও ইফতারের সময়সূচী ২০২০ ঢাকা জেলার জন্য প্রযোজ্য



১৪৪১   রমযান
২০২০
এপ্রিল/মে
বার
সাহরীর
শেষ সময়
ইফতারের
সময়
           রহমতের ১০ দিন          Edu Masail
০১
২৫ এপ্রিল
শনি
৪-০৫ মিঃ
৬-২৮ মিঃ
০২
২৬ এপ্রিল
রবি
৪-০৪ মিঃ
৬-২৯ মিঃ
০৩
২৭ এপ্রিল
সোম
৪-০৩ মিঃ
৬-২৯ মিঃ
০৪
২৮ এপ্রিল
মঙ্গল
৪-০২ মিঃ
৬-২৯ মিঃ
০৫
২৯ এপ্রিল
বুধ
৪-০১ মিঃ
৬-৩০ মিঃ
০৬
৩০ এপ্রিল
বৃহস্পতি
৪-০০ মিঃ
৬-৩০ মিঃ
০৭
০১  মে
শুক্র
৩-৫৯ মিঃ
৬-৩১ মিঃ
০৮
০২  মে
শনি
৩-৫৮ মিঃ
৬-৩১ মিঃ
০৯
০৩  মে
রবি
৩-৫৭ মিঃ
৬-৩২ মিঃ
১০
০৪  মে
সোম
৩-৫৫ মিঃ
৬-৩২ মিঃ
মাগফিরাতের ১০ দিন
১১
০৫  মে
মঙ্গল
৩-৫৪ মিঃ
৬-৩৩ মিঃ
১২
০৬  মে
বুধ
৩-৫৩ মিঃ
৬-৩৩ মিঃ
১৩
০৭  মে
বৃহস্পতি
৩-৫২ মিঃ
৬-৩৪ মিঃ
১৪
০৮  মে
শুক্র
৩-৫১ মিঃ
৬-৩৪ মিঃ
১৫
০৯  মে
শনি
৩-৫০ মিঃ
৬-৩৫ মিঃ
১৬
১০  মে
রবি
৩-৫০ মিঃ
৬-৩৫ মিঃ
১৭
১১  মে
সোম
৩-৪৯ মিঃ
৬-৩৬ মিঃ
১৮
১২  মে
মঙ্গল
৩-৪৯ মিঃ
৬-৩৬ মিঃ
১৯
১৩  মে
বুধ
৩-৪৮ মিঃ
৬-৩৬ মিঃ
২০
১৪  মে
বৃহস্পতি
৩-৪৮ মিঃ
৬-৩৭ মিঃ
নাজাতের ১০ দিন
২১
১৫  মে
শুক্র
৩-৪৭ মিঃ
৬-৩৭ মিঃ
২২
১৬  মে
শনি
৩-৪৭ মিঃ
৬-৩৮ মিঃ
২৩
১৭  মে
রবি
৩-৪৬ মিঃ
৬-৩৮ মিঃ
২৪
১৮  মে
সোম
৩-৪৬ মিঃ
৬-৩৯ মিঃ
২৫
১৯  মে
মঙ্গল
৩-৪৫ মিঃ
৬-৩৯ মিঃ
২৬
২০  মে
বুধ
৩-৪৪ মিঃ
৬-৪০ মিঃ
২৭
২১  মে
বৃহস্পতি
৩-৪৪ মিঃ
৬-৪০ মিঃ
২৮
২২  মে
শুক্র
৩-৪৩ মিঃ
৬-৪১ মিঃ
২৯
২৩  মে
শনি
৩-৪৩ মিঃ
৬-৪২ মিঃ
৩০
২৪  মে
রবি
৩-৪২ মিঃ
৬-৪২ মিঃ



ঢাকার সাথে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার সাহরী ও ইফতারের পার্থক্য ও মিল



ঢাকার সাথে যেসব জেলার সাহরী (সেহরি) ও ইফতারের মিলঃ 

সাহরীঃ নারায়নগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, টাঙ্গাইল ও চাদপুর।

ইফতারঃ মাদারীপুর, নেত্রকোনা, পিরোজপুর ও গাজীপুর।


ঢাকার সময়ের সাথে যেসব জেলার সাহরী (সেহরি) ও ইফতারের সময় যোগ (+) করতে হবেঃ


জেলা
ইফতার
জেলা
সাহরী
গোপালগঞ্জ, বাগেরহাট
ময়মনসিঙ্গহ
১ মিনিট
মানিকগঞ্জ, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, পঞ্চগড়, নীলফামারি
১ মিনিট
মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল,
ফরিদপুর, নড়াইল
খুলনা
২ মিনিট
ভোলা, শরিয়তপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাও, জয়পুরহাট, ফরিদপুর, মাদারিপুর, বরিশাল
২ মিনিট
শেরপুর, মাগুরা
৩ মিনিট
নওগা, ঝালকাটি
৩ মিনিট
সিরাজগঞ্জ, জামালপুর
রাজবাড়ি, যশোর,
সাতক্ষিরা
৪ মিনিট
নাটোর, পাবনা
রাজবাড়ি, মাগুরা
পটুয়াখালি, গোপালগঞ্জ
৪ মিনিট
কুষ্টিয়া, পাবনা
ঝিনাইদহ
৫ মিনিট
কুষ্টিয়া, রাজশাহি,
পিরোজপুর, বরগুনা,
নরাইল, বাগেরহাট
ঝিনাইদহ
৫ মিনিট
চুয়াডাঙ্গা, গাইবান্ধা,
বগুড়া
৬ মিনিট
চাপাইনবাবগঞ্জ, যশোর, চুয়াডাঙ্গা
খুলনা
৬ মিনিট
নাটোর, মেহেরপুর,
কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট
৭ মিনিট
মেহেরপুর
৭ মিনিট
রাজশাহি, নওগা, রংপুর, জয়পুরহাট
৮ মিনিট
সাতক্ষীরা
৮ মিনিট
নীলফামারি, দিনাজপুর, চাপাইনবাবগঞ্জ
১০ মিনিট
--
--
পঞ্চগড়, ঠাকুরগাও
১২ মিনিট
--
--



ঢাকার সময়ের সাথে যেসব জেলার সাহরী (সেহরি) ও ইফতারের সময় বিয়োগ (-) করতে হবেঃ


জেলা
সাহরী
জেলা
ইফতার
গাজিপুর, লক্ষিপুর,
রংপুর, নোয়াখালি,
গাইবান্ধা, কক্সবাজার
১ মিনিট
শরিয়তপুর, কিশোরগঞ্জ,
নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ,
মুন্সিগঞ্জ, ঝালকাটি
১ মিনিট
শেরপুর, জামালপুর
কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, চট্টগ্রাম, নরসিংদি
২ মিনিট
বরিশাল, পটুয়াখালি,
বরগুনা, সুনামগঞ্জ,
চাদপুর
২ মিনিট
কুমিল্লা, ময়মনসিং
কিশোরগঞ্জ, ফেনি
৩ মিনিট
বিবাড়িয়া, লক্ষিপুর,
ভোলা, হবিগঞ্জ
৩ মিনিট
বিবাড়িয়া, রাঙ্গামাটি
বান্দরবান
৪ মিনিট
কুমিল্লা, নোয়াখালি,
সিলেট, মৌলভীবাজার
৪ মিনিট
নেত্রকোনা, খাগড়াছড়ি
৫ মিনিট
ফেনি
৫ মিনিট
হবিগঞ্জ
৬ মিনিট
খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম
৮ মিনিট
সুনামগঞ্জ
৭ মিনিট
রাঙ্গামাটি
৯ মিনিট
মৌলভীবাজার
৮ মিনিট
বান্দরবান, কক্সবাজার
১০ মিনিট
সিলেট
৯ মিনিট
--
--

রোজার নিয়তঃ


نَوَيْتُ اَنْ اُصُوْمَ غَدًا مِّنْ شَهْرِ رَمْضَانَ الْمُبَارَكِ فَرْضَا لَكَ يَا اللهُ فَتَقَبَّل مِنِّى اِنَّكَ اَنْتَ السَّمِيْعُ الْعَلِيْم
আরবি নিয়ত : নাওয়াইতু আন আছুম্মা গাদাম মিন শাহরি, রামদানাল মুবারাকি, ফারদাল্লাকা, ইয়া আল্লাহু ফাতাকাব্বাল মিন্নি, ইন্নিকা আনতাস সামিউল 'আলিম।
বাংলায় নিয়ত : হে আল্লাহ! আমি আগামীকাল পবিত্র রামাদানের তোমার পক্ষ থেকে নির্ধারিত ফরজ রোজা রাখার ইচ্ছা পোষণ (নিয়্যত) করলাম। অতএব তুমি আমার পক্ষ থেকে (আমার রোদা (রোযা) তথা পানাহার থেকে বিরত থাকাকে) কবুল কর, নিশ্চয়ই তুমি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞানী।

ইফতারের দোয়াঃ


اَللَّهُمَّ لَكَ صُمْتُ وَ عَلَى رِزْقِكَ وَ اَفْطَرْتُ بِرَحْمَتِكَ يَا اَرْحَمَ الرَّاحِيْمِيْن
উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা লাকা ছুমতু ওয়া 'আলা রিযক্বিকা ওয়া আফতারতু বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রাহিমীন।
অর্থ : হে আল্লাহ! আমি তোমারই সন্তুষ্টির জন্য রোজা রেখেছি এবং তোমারই দেয়া রিযিক্বের মাধ্যমে ইফতার করছি।

আরও পড়ুনঃ ইফতারের সময় করণীয় ও দোয়া সমূহ

Post a Comment

Previous Post Next Post